ছেলে অগ্নিদ্বগ্ধে মারা যাওয়ার ছয় মাস পরে সাংবাদিক মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নুও অগ্নিদ্বগ্ধে মারা গেলেন

ছেলে অগ্নিদ্বগ্ধে মারা যাওয়ার ছয় মাস পরে সাংবাদিক মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নুও অগ্নিদ্বগ্ধে মারা গেলেন
  • 105
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    105
    Shares

নিজস্ব প্রতিবেদক
এক মাত্র ছেলে অগ্নিদ্বগ্ধে মারা যাওয়ার মাত্র ছয় মাস পরে যুগান্তরের সিনিয়র ক্রাইম রিপোর্টার এবং বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন (ক্র্যাব) কার্যনির্বাহী কমিটির সাবেক সাধারন সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নুও অগ্নিদ্বগ্ধে আজ শনিবার মারা গেছেন।

ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন।

আজ সকাল ৮ টা ২০ মিনিটে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেছেন।
বৃহস্পতিবার গভীর রাতে রাজধানীর আফতাব নগরস্থ নিজ বাসায় অগ্নিদ্বগ্ধে গুরুতর আহত হয়েছিলেন। রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে তাঁকে ভর্তি করা হয়েছিল। বিশ্বস্ত সূত্র জানিয়েছে,তাঁর শরীরের প্রায় ৬০ শতাংশের মতো পুড়ে গিয়েছিল। অবস্থা আশংকাজনক বলেও জানিয়েছিলেন তাঁর সহকর্মীরা।
ক্র্যাব কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতি ও দৈনিক ইত্তেফাকের বিশেষ প্রতিনিধি আবুল খায়ের সিনিয়র ডাক্তারদের সাথে ব্যাক্তিগতভাবে যোগাযোগ করে মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নুর সুচিকিৎসা নিশ্চিত করা চেস্টা করেছিলেন বলে জানা গেছে।
এছাড়া ক্র্যাব সাধারন সম্পাদক আসাদুজ্জামান বিকু ,ক্র্যাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক আবু সালেহ আকন এবং ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) কার্যনির্বাহী কমিটির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ইত্তেফাকের সিনিয়র রিপোর্টার জামিউল আহসান সিপুসহ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বার্ন ইউনিটে উপস্থিত থেকে চিকিৎসার সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর নিয়েছিলেন।
এছাড়া ক্র্যাব সাধারন সম্পাদক আসাদুজ্জামান বিকু ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) কার্যনির্বাহী কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক , ক্র্যাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক আবু সালেহ আকন ও ইত্তেফাকের সিনিয়র রিপোর্টার জামিউল আহসান সিপুসহ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বার্ন ইউনিটে উপস্থিত থেকে চিকিৎসার সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর নিয়েছিলেন।
কিন্তু শুক্রবার সকাল পর্যন্ত শেখ হাসিনা বার্ণ ইউনিটের সিনিয়র ডাক্তারদের দেখা মিলেনি।
শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন তখনই, জানিয়েছিলেন রোগীর অবস্থা খুবই ক্রিটিক্যাল। তার শরীরে গভীর দগ্ধ। প্রায় ৬০ শতাংশের মতো পুড়ে গেছে। আশংকাজনক হওয়ায় ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) স্থানান্তর করতে হয়েছে।
শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট থেকে সকালে তার স্ত্রী শাহীনা আহমেদ পল্লবী শুক্রবার জানিয়েছিলেন যে, ভোর ৩ টার দিকে তাঁর স্বামী বাসার অপর এক রুমে সিগারেট জ্বালাতে গেলে পুরো ঘরে আগুন ধরে যায়। গ্যাস লাইন থেকে জমে থাকা গ্যাসের কারনেই এই আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে তার ধারনা।
মা্ত্র ৬মাস আগে এই বাসায় হিটার বিষ্ফোরনে অগ্নিদ্বগ্ধ হয়ে তাদের একমাত্র সন্তান মিউজিক ডাইরেক্টর প্রান হারান।
অল ক্রাইমস টিভি/এইসবি


  • 105
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    105
    Shares
  •  
    105
    Shares
  • 105
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply