Home / খেলাধুলা / ব্রড নৈপূণ্যে ইংল্যান্ডের সিরিজ জয়

ব্রড নৈপূণ্যে ইংল্যান্ডের সিরিজ জয়

22আইসিসির টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে এক নম্বর দল দক্ষিণ আফ্রিকা। তালিকায় ইংল্যান্ডের অবস্থান পাঁচে। সাধারণত এক-পাঁচের লড়াইয়ে নাম্বার ওয়ানকেই জিততে হয়। শক্তির বিচারে এটাই তো হওয়া উচিত। কিন্তু ক্রিকেটে ব্যাট-বলের লড়াইয়ে যে এসবের ধার ধারে না! কখনো এক নাম্বারকেও খেতে হয় নাকানি-চুবানি।

শনিবার র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকার কপালেও জুটল এমন লজ্জাই। জোহানেসবার্গে সিরিজের তৃতীয় টেস্টে ইংল্যান্ডের কাছে তারা হেরেছে ৭ উইকেটে। তাও আবার পাঁচ দিনের ম্যাচ শেষ তৃতীয় দিনেই। আর তাতে চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ২-০ ব্যবধানে সিরিজ নিশ্চিত করল ইংলিশরা। প্রথম টেস্টে স্বাগতিকদের ২৪১ রানে হারায় অ্যালিস্টার কুকের দল। দ্বিতীয় টেস্ট শেষ হয় নিষ্প্রাণ ড্রয়ে। আগামী ২২ জানুয়ারি সেঞ্চুরিয়ানে শুরু হবে সিরিজের চতুর্থ ও শেষ টেস্ট।

জোহানেসবার্গ তৃতীয় টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার সূচনাটা অবশ্য ভালোই ছিল। নিজেদের প্রথম ইনিংসে কোনো ব্যাটসম্যান অর্ধশতকের দেখা না পেলেও ৩১৩ রানের পুঁজি গড়ে স্বাগতিকরা। ডিন এলগার সর্বোচ্চ ৪৬ রান করেন।

জবাবে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা জো রুটের সেঞ্চুরিতে ইংল্যান্ড তাদের প্রথম ইনিংসে করে ৩২৩ রান। তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন বেন স্টোকস (৫৮) ও জনি বেয়ারস্টো (৪৫)। সুতরাং প্রথম ইনিংসে ১০ রানে এগিয়ে থাকে অ্যালিস্টার কুকের দল।

এদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার ছন্দপতন ঘটে দ্বিতীয় ইনিংসে। ব্যাটিং ব্যর্থতায় তারা অলআউট হয় মাত্র ৮৩ রানে। টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান ডিন এলগার (১৫), ভন জাইল (১১), হাশিম আমলা (৫), এবি ডি ভিলিয়ার্স (০), টেম্বা বাভুমা (০) ও ডু প্লেসিসের (১৪) রান সংখ্যা দেখলেই তা স্পষ্ট হয়ে উঠবে। দক্ষিণ আফ্রিকার চার ব্যাটসম্যান দুই অঙ্ক ছুঁলেও বাকিরা ছিলেন আসা-যাওয়ার মিছিলে। এদিন এক স্টুয়ার্ট ব্রডের কাছেই মাথা নত করলেন দ. আফ্রিকার ব্যাটম্যানরা। দ্বিতীয় ইনিংসে ইংলিশ এই বোলার তুলে নিয়েছেন ৬ উইকেট, মাত্র ১৭ রানের বিনিময়ে। প্রথম ইনিংসের ২ উইকেট মিলে মোট ৮ উইকেট নিয়ে স্বাগতিকদের কুপোকাত করেন ব্রড।

দ. আফ্রিকা ঘরের মাটিতে সর্বনিম্ন আর সব মিলিয়ে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন (৮৩) লজ্জার রেকর্ড গড়ার দিনে ইংল্যান্ডের সামনে জয়ের জন্য লক্ষ্য দাঁড়ায় ৭৪ রান। সহজ এই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ড খুইয়েছে ৩ উইকেট। দলীয় অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন। তিনি কাটা পড়েন ক্রিস মরিসের বলে। ডিন এলগারের বলে এলবিডব্লিউ হওয়ার আগে ১৮ রান করেন অ্যালেক্স হেলস।

Print Friendly

উপদেষ্টা সম্পাদক : আরিফ নেওয়াজ ফরাজী বাদল

সম্পাদক : হাবিবুল্লাহ মিজান

মোবাইল : ০১৫৩৪৬০৪৪৭৬, ই-মেইল : mizandeshi@gmail.com