Home / জেলার অপরাধ / খুলনা-বিভাগ / জয়ী ও পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনাঃ বাড়িতে হামলা চালিয়ে কুপিয়ে হত্যা

জয়ী ও পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনাঃ বাড়িতে হামলা চালিয়ে কুপিয়ে হত্যা

অল ক্রাইমস টিভিঃ মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার গয়েশপুর ইউনিয়নে আজ সোমবার সকালে জয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থীর এক সমর্থককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত ব্যক্তির নাম বাবলু শেখ (৩৫)। ঘটনার পর জয়ী প্রার্থীর সমর্থকেরা হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠা প্রতিপক্ষের লোকজনের বাড়িতে ভাঙচুর চালান।

স্থানীয় লোকজন জানান, গত শনিবার গয়েশপুর ইউনিয়নে তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল হালিম মোল্লা অংশ নেন। তাঁর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেন বাবলু শেখ। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন ইউসুফ আলী মণ্ডল। স্থানীয়ভাবে আওয়ামী লীগের সঙ্গে সম্পৃক্ততা থাকায় নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে পরিচিতি পান। তাঁর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেন বাবলু শেখের আপন চাচাতো ভাই শরীফুল ইসলাম। নির্বাচনে জয়ী হন আবদুল হালিম।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর থেকে এলাকায় জয়ী ও পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। এর মধ্যে আজ সকাল নয়টার দিকে কয়েকজন যুবক বাবলু শেখের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেন এবং তাঁকে কুপিয়ে হত্যা করে দ্রুত চলে যান। হামলায় আরও অন্তত পাঁচজন আহত হন। তাঁদের মধ্যে দুজনকে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাবলুকে পরাজিত প্রার্থীর পক্ষের শরীফুলসহ অন্য সমর্থকেরা হত্যা করেছেন—এমন অভিযোগে জয়ী প্রার্থীর সমর্থকেরা পাল্টা হামলা করেন। তাঁরা শরীফুলসহ পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর চালান। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শতাধিক ফাঁকা গুলি ছোড়ে।
চেয়ারম্যান আবদুল হালিম মোল্লা মুঠোফোনে সাংবাদিকদের বলেন, ‘নির্বাচনের আগে বাবলু শেখসহ অন্যরা আমার পক্ষে নির্বাচনী কাজ করেন। নৌকায় ভোট দেওয়ার কারণেই বাবলুকে জীবন দিতে হলো।’ প্রতিপক্ষের কিছু বাড়ি ভাঙচুরের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দিনে দুপুরে খুনের ঘটনার পর ক্ষুব্ধ লোকজন কিছু বাড়িঘর ভাঙচুর করেছেন।
পরাজিত প্রার্থী ইউসুফ আলীর ছেলে এনামুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, সকালে একটি মামলায় আদালতে হাজিরা দিতে তাঁর বাবা ইউসুফ মাগুরার আদালতে যান। ওই মামলায় তাঁর জামিন আবেদন নামঞ্জুর হয়। বর্তমানে তিনি কারাগারে আছেন।
জানতে চাইলে শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল ইসলাম বলেন, হত্যা ও পরবর্তী ঘটনায় জড়িত কাউকে আটক করা যায়নি। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত। হত্যার ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly

উপদেষ্টা সম্পাদক : আরিফ নেওয়াজ ফরাজী বাদল

সম্পাদক : হাবিবুল্লাহ মিজান

মোবাইল : ০১৫৩৪৬০৪৪৭৬, ই-মেইল : mizandeshi@gmail.com